নিউরন কি বা কাকে বলে? নিউরনের গঠন ও নিউরনের কাজ

নিউরন কি?

স্নায়ুতন্ত্রের গঠনমূলক ও কার্যকরী একককে নিউরন বা স্নায়ুকোষ বলে। মস্তিষ্ক কোটি কোটি নিউরন দিয়ে গঠিত। একটি মাত্র মানুষের মগজে ১,০০০ কোটি স্নায়ুকোষ বা নার্ভ সেল থাকে।

নিউরনের গঠন

প্রতিটি নিউরনে দুটি অংশ থাকে। যথা -

ক) কোষদেহ এবং 

খ) প্রলম্বিত অংশ।


একটি নিউরন

ক) কোষদেহ (Cell body) : প্লাজমামেমব্রেন, সাইটোপ্লাজম আর নিউক্লিয়াস নিয়ে গঠিত নিউরনের গোলাকার, তারকাকার, অথবা ডিম্বাকার অংশ কোষদেহ নামে পরিচিত। এখানে সাইটোপ্লাজমে মাইটোকন্ড্রিয়া, গলজিবস্তু, লাইসোজোম, চর্বি, গ্লাইকোজেন, রঞ্জক কণাসহ অংসখ্য নিসল দানা থাকে।

খ) প্রলম্বিত অংশ : কোষদেহ থেকে সৃষ্ট শাখা-প্রশাখাকেই প্রলম্বিত অংশ বলে। প্রলম্বিত অংশ দুই ধরনের হয়ে থাকে। যথা -

  • ডেনড্রন (Dendron) : কোষদেহের চারদিকের শাখাযুক্ত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রলম্বিত অংশকে ডেনড্রন বলে। ডেনড্রন থেকে যে শাখা বের হয় তাদের ডেনড্রাইট বলে। একটি নিউরনে ডেনড্রন সংখ্যা শূন্য থেকে শতাধিক পর্যন্ত হতে পারে। ডেনড্রাইট অন্য নিউরন থেকে স্নায়ু তাড়না গ্রহণ করে।
  • অ্যাক্সন (Axon) : কোষদেহ থেকে উৎপন্ন বেশ লম্বা তন্তুটির নাম অ্যাক্সন। এর চারদিকে পাতলা আবরণটিকে নিউরিলেমা বলে। নিউরিলেমা এবং অ্যাক্সনের মধ্যবর্তী অঞ্চলে স্নেহ পদার্থের একটি স্তর থাকে। একে মায়োলিন (Myelin) বলে। অ্যাক্সনের শেষ মাথা অ্যাক্সন টারমিনালে বিভক্ত হয়ে যায়, এবং এই টারমিনালগুলো দিয়ে সিন্যাপস মারফত অন্য নিউরনের ডেনড্রাইটে স্নায়ু তাড়না প্রেরণ করা হয়।

বহুসংখ্যক অ্যাক্সন ও ডেনড্রাইট মিলিত হয়ে স্নায়ু গঠন করে।

র‌্যানভিয়ারের পর্ব কাকে বলে?

নিউরিলেমা আবরণটি অবিচ্ছিন্ন নয়। নির্দিষ্ট দূরত্ব পর পর এটি সাধারণত বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকে। শুধু এই বিচ্ছিন্ন অংশে নিউরিলেমার সাথে অ্যাক্সনের প্রত্যক্ষ সংস্পশ ঘটে। এই আবরণবিহীন অংশগুলো র‌্যানভিয়ারের পর্ব (Node of Ranvier) নামে পরিচিত। 

অ্যাক্সলেমা কাকে বলে?

অ্যাক্সনের মূল অক্ষের আবরণীকে অ্যাক্সলেমা (Axolema) বলে।

সিন্যাপস কাকে বলে?

একটি নিউরনের অ্যাক্সনের টারমিনালের সাথে দ্বিতীয় একটি নিউরনের ডেনড্রাইট সরাসরি যুক্ত থাকে না। এই সূক্ষ্ম ফাঁকা সংযোগস্থলকে সিন্যাপস (Synapse) বলে। প্রকৃতপক্ষে পর পর অবস্থিত দুটি নিউরনের সন্ধিস্থল হলো সিন্যাপস। অ্যাক্সন টারমিনাল সিন্যাপসের মধ্য দিয়ে তড়িৎ রাসায়নিক পদ্ধতিতে স্নায়ু তাড়না প্রবাহিত হয়। 

সিন্যাপসে নিউরোহিউমার নামক তরল পদার্থ থাকে। কোনো একটি নিউরনের মধ্য দিয়ে স্নায়ু তাড়না প্রবাহিত হয়ে সিন্যাপস অতিক্রম করে পরবর্তী নিউরনে যায়। অর্থাৎ এর ভিতর দিয়ে স্নায়ু উদ্দীপনা বা স্নায়ু তাড়না একদিকে পরিবাহিত হয়। মানুষের মস্তিষ্কে প্রায় একশত বিলিয়ন নিউরন রয়েছে এবং প্রতিটি নিউরন অন্য সাত থেকে দশ হাজার নিউরনের সাথে সিন্যাপস সংযোগ করে থাকে।

নিউরনের কাজ

  • নিউরন প্রধানত উদ্দীপনা বহন করে।
  • নিউরন স্মৃতি সংরক্ষণ ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
  • আজ্ঞাবাহী নিউরন কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র বা মস্তিষ্ক থেকে কার্যকরী অঙ্গে উদ্দীপনা প্রেরণ করে এবং সংবেদী নিউরন গ্রাহক অঙ্গ থেকে কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রে উদ্দীপনা প্রেরণ করে।

আরো পড়ুনঃ

👉 যৌগিক পদার্থ কাকে বলে?

👉 হিমাঙ্ক কাকে বলে?

👉 নিউরন কি বা কাকে বলে? নিউরনের গঠন ও নিউরনের কাজ

👉 প্রিজম কাকে বলে?

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url