পোস্ট

হিসাববিজ্ঞানের উদ্দেশ্য ও প্রয়োজনীয়তা লিখ।

হিসাববিজ্ঞানের উদ্দেশ্য  ও প্রয়োজনীয়তা নিম্নরূপ- লেনদেনসমূহ সঠিকভাবে হিসাবের বইতে লিপিবদ্ধকরণ ব্যতীত প্রতিষ্ঠানের আর্থিক ফলাফল ও আর্থিক অবস্থা সম্পর্কে জানা সম্ভব নয়। তাই হিসাববিজ্ঞানের প্রথম উদ্দেশ্য লেনদেনসমূহকে সুনির্দিষ্ট পদ্ধতি অনুসরণ করে সঠিকভাবে হিসাবের বইতে লিপিবদ্ধ করা। হিসাববিজ্ঞানের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য আর্থিক ফলাফল ও আর্থিক অবস্থা নিরূপণ করা। লাভ-ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয়ের মাধ্যমে ব্যবসায়ের গতি প্রকৃতি সম্পর্কে ধারণা লাভ করা সম্ভব। যাবতীয় আয় ও ব্যয় সঠিকভাবে লিপিবদ্ধকরণের মাধ্যমে ব্যবসায়ের লাভ-ক্ষতি নির্ণয় করা সম্ভব। প্রতিষ্ঠানের সম্পদ, দায় ও মালিকানা স্বত্বের পরিমাণ নির্ণয়ের মাধ্যমে আর্থিক অবস্থা সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ধারণা লাভ করা সম্ভব। ব্যয় নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের কাঙ্খিত ফলাফল অর্জন করা সম্ভব। হিসাববিজ্ঞান ব্যবসায়ের যাবতীয় ব্যয় সঠিকভাবে লিপিবদ্ধকরণের মাধ্যমে ব্যয় নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে প্রতারণা ও জালিয়াতি রোধে হিসাববিজ্ঞানের কোনো বিকল্প নেই। যথাযথ হিসাবরক্ষণের মাধ্যমে প্রতারণা ও জালিয়াতি রোধের পাশাপাশি তা নিয়ন্ত্রণ করাও সম্ভব। আর্থিক তথ্যাবলি সংশ

হিসাববিজ্ঞান কাকে বলে?

হিসাববিজ্ঞান এমন একটি প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় আর্থিক কার্যাবলি যেমন- খরচ পরিশোধন, আয় আদায়, সম্পদ ক্রয় ও বিক্রয়, পণ্য ক্রয় ও বিক্রয়, দেনাদার হতে আদায় এবং পাওনাদারকে পরিশোধ ইত্যাদি হিসাবের বইতে সুষ্ঠুভাবে লিপিবদ্ধ করা যায় এবং নির্দিষ্ট সময় শেষে আর্থিক কার্যাবলির ফলাফল জানা যায়। হিসাববিজ্ঞান বিষয়ে ব্যবসায়ের আর্থিক লেনদেন লিপিবদ্ধকরণ, শ্রেণিবদ্ধকরণ, ব্যাখ্যাকরণের পদ্ধতি আলোচনা করা হয়। এর ফলে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের আর্থিক অবস্থার পরিবর্তন নির্ণয় করা যাবে এবং এসব তথ্যাবলি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাহায্য করবে। হিসাববিজ্ঞানের জ্ঞান ব্যবহার করে হিসাবের বিভিন্ন বিবরণী ও প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়, যার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের আর্থিক অবস্থা জানা যায়। তাই হিসাববিজ্ঞানকে ‘ব্যবসায়ের ভাষা’ বলা হয়। হিসাববিজ্ঞানের মাধ্যমে আর্থিক ঘটনাসমূহ হিসাবের নির্দিষ্ট বইতে যথাযথভাবে লিপিবদ্ধ, শ্রেণিবদ্ধ ও বিশ্লেষণ করে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক ফলাফল ও আর্থিক অবস্থা নিরূপণ করা যায়।

দোলন গতি কাকে বলে?

 একটি সরু সুতার এক প্রান্তের সাথে একটি ছোট পাথরের টুকরো বেঁধে সুতার অন্য প্রান্ত একটি টেবিলের প্রান্তের সাথে বেঁধে ঝুলিয়ে দিন। এখন পাথরটির এক প্রান্ত সামান্য পরিমাণ টেনে ছেড়ে দিন। পাথরটি দুলতে থাকবে এবং নির্দিষ্ট সময় পর পর পাথরটির গতির কি পরিবর্তিত হবে। পাথরটির এ ধরনের গতি দোলন গতি। ঘড়ির দোলকের গতি, দোলনার গতি ইত্যাদি দোলন গতি।  অর্থাৎ কোনো গতিশীল বস্তু গতির অর্ধেক সময় এক দিকে এবং বাকী অর্ধেক সময় বিপরীত দিকে যায় এবং নির্দিষ্ট সময় পর পর তার গতি পথের কোনো বিন্দুকে একই দিক দিয়ে অতিক্রম করলে যে গতি হয় তাকে দোলন গতি বলে। দোলন গতি বিশেষ ধরনের পর্যাবৃত্ত গতি। একে স্পন্দন গতিও বলে।

জটিল গতি কাকে বলে?

 যখন কোনো গতিশীল বস্তুতে একই সাথে একাধিক ধরনের গতি বর্তমান থাকে তখন তার গতিকে যৌগিক গতি বা জটিল গতি বলে। যেমন: রাস্তায় চলন্ত সাইকেল বা রিক্সার চাকার ঘূর্ণন গতির সাথে সরল ও বক্র পথে রৈখিক গতিও থাকে তাই এই চলন্ত চাকার গতি যৌগিক বা জটিল গতি।

ঘূর্ণন গতি কাকে বলে?

 চলন্ত সাইকেলর বা রিক্সার চাকার গতি, বৈদ্যুতিক পাখার গতি, পৃথিবীর নিজ অক্ষে আবর্তনের গতি, লাটিমের গতি ইত্যাদি ঘূর্ণন গতি। অর্থাৎ কোনো বিন্দু বা অক্ষকে কেন্দ্র করে যখন কোনো বস্তু ঘুরতে থাকে তাতে বস্তুটির যে গতি হয় তাকে ঘূর্ণন গতি বলে।

পর্যায় গতি কাকে বলে?

 কোনো গতিশীল বস্তুর গতি যদি এমন হয় যে, এটি এর গতি পথের কোনো নির্দিষ্ট বিন্দুকে নির্দিষ্ট সময় পর পর একই দিক থেকে অতিক্রম করে তা হলে সেই গতিকে পর্যায় গতি বলে। যেমন- বৈদ্যুতিক পাখার গতি, ঘড়ির কাঁটার গতি, গ্রামফোন রেকর্ডের গতি ইত্যাদি। আবার ঘড়ির পেন্ডুলামের গতি, দোলকের দোলন গতি, ইঞ্জিনের মধ্যে পিস্টনের সামনে পেছনের গতিও পর্যায় গতি।

সরল রৈখিক গতি কাকে বলে?

 মসৃণ মেঝের উপর গড়িয়ে দেওয়া মার্বেলের গতি, উপর থেকে ছেড়ে দেওয়া বস্তুর পৃথিবীর আকর্ষণে মাটিতে পড়ার গতি - রৈখিক গতি। অর্থাৎ যখন কোনো বস্তু সরল রেখা বরাবর চলে তখন বস্তুর ঐ গতিকে সরল রৈখিক গতি বলে।

Popular

তোমার পরিবারের সদস্যদের কোন কোন কাজ টেকসই উন্নয়নের অন্তরায় তা চিহ্নিত করে একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন কর।

৬ষ্ঠ শ্রেণির ৩য় এ্যাসাইনমেন্ট

নাইলনকে নন সেলুলোজিক তন্তু বলা হয় কেন ব্যাখ্যা কর।

সামাজিক পরিবর্তনের ২টি উদাহরণ দাও।

আইসোটোপ কাকে বলে?

সাংস্কৃতিক আত্তীকরণ বলতে কি বুঝায়?

স্থির অবস্থান থেকে যাত্রা শুরু করে 600 kg ভরের একটি গাড়ি 0.2m/s2 সুষম ত্বরণে 60 s চলার পর 400 kg ভরের একটি স্থির পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে আটকে একত্রে 7.2 m/s বেগে চলতে থাকে।

সাইকাস, সুপারি গাছ, মস, কাঁঠাল গাছ, সরিষা উদ্ভিদগুলো কোন ধরনের, তাদের বৈশিষ্ট্য লিখ।

স্লিভার কাকে বলে?

আধুনিক শ্রেণিকরণ পদ্ধতিতে অ্যামিবা ও মাশরুম কোন রাজ্যের অন্তর্গত, এদের বৈশিষ্ট্য লিখ।