হিমাঙ্ক কাকে বলে? কোনো পদার্থের গলনাঙ্ক ও হিমাঙ্কের তাপমাত্রা একই হয় কারণ

হিমাঙ্ক কাকে বলে?

যে তাপমাত্রায় কোনো তরল পদার্থ কঠিন পদার্থে পরিণত হয় সে তাপমাত্রাকে ঐ পদার্থের হিমাঙ্ক বলে। যা গলনাঙ্ক এর সমান হয়। সাধারণত কোনো পদার্থের গলনাঙ্ক ও হিমাঙ্ক একই হয়ে থাকে।

পানি শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় বরফে পরিণত হয়। এই শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে পানির ফ্রিজিং পয়েন্ট বা হিমাঙ্ক বলে। পানির হিমাঙ্ক হলো  শূন্য (০) ডিগ্রি সেলসিয়াস।

কোনো একটি বস্তুর তাপমাত্রা যদি হিমাঙ্কে উপর থাকে এবং তা পারিপার্শ্বিকের চেয়ে বেশি হয়, তবে পারিপার্শ্বিক তাপমাত্রায় বস্তুটিকে রেখে দিলে তা ধীরে ধীরে তাপ হারাতে থাকে, ফলে এর তাপমাত্রা কমতে থাকে এবং যখন তাপমাত্রা হিমাঙ্কে চলে আসে তখন এটি কঠিনে পরিণত হয়।

কোনো পদার্থের গলনাঙ্ক ও হিমাঙ্কের তাপমাত্রা একই হয় কারণ

স্বাভাবিক চাপে যে তাপমাত্রায় কোন কঠিন পদার্থ গলে তরলে পরিণত হয় সেই তাপমাত্রাকে ঐ কঠিন পদার্থের গলনাঙ্ক বলে। 

কঠিন অবস্থায় পদার্থের কণাগুলি একে অপরের খুব নিকটে থাকার কারণে আন্তঃআণবিক আকর্ষণ বল সবচেয়ে বেশি থাকে। কঠিন পদার্থকে তাপ দিলে আন্তঃআণবিক আকর্ষণ বল ভেঙ্গে গিয়ে তরলে পরিণত হয়। কঠিন পদার্থটি সম্পূর্ণ তরলে পরিণত না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা স্থির থাকে। কারণ এই অবস্থায় যে তাপ দেওয়া হয় পদার্থটি সেই তাপ শোষণ করে তার মধ্যে আন্তঃআণবিক আকর্ষণ বল ভাঙতে ব্যবহার করে। এজন্যে এ তাপকে সুপ্ততাপ বলে।

আবার, স্বাভাবিক চাপে যে তাপমাত্রায় কোন তরল পদার্থ কঠিন পদার্থে পরিণত হয় তাকে হিমাঙ্ক বলে।

এক্ষেত্রেও তরল পদার্থটি সম্পূর্ণ কঠিন পদার্থে পরিণত না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা স্থির থাকে। কোন কঠিন পদার্থকে তাপ দিতে থাকলে যে তাপমাত্রায় গলতে শুরু করে অপরদিকে তাপ অপসারণ করতে থাকলে ওই একই তাপমাত্রায় পদার্থটি জমতে শুরু করে। অর্থাৎ কঠিনে পরিণত হয়।

সুতরাং বলা যায় কোন পদার্থের গলনাঙ্কের তাপমাত্রা ও হিমাঙ্কের তাপমাত্রা একই হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ

👉 যৌগিক পদার্থ কাকে বলে?

👉 হিমাঙ্ক কাকে বলে?

👉 নিউরন কি বা কাকে বলে? নিউরনের গঠন ও নিউরনের কাজ

👉 প্রিজম কাকে বলে?

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url