Featured Post

বৃত্তিমূলক নির্দেশনা কাকে বলে? শিক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে বৃত্তিমূলক নির্দেশনার কার্যাবলি

বৃত্তিমূলক নির্দেশনা (Vocational Guidance) কাকে বলে? শিক্ষার তিনটি স্তর যথা: প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা। মূলত মাধ্যমিক শিক্ষা স্তর থেকেই শিক্ষার্থীকে বৃত্তির জন্য প্রস্তুত করা হয়। বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে শিল্প ও সেবার ক্ষেত্রে নানা ধরনের বৃত্তির উদ্ভব হয়। বহুমুখী ও বৈচিত্র্যময় বৃত্তির সুযোগ তৈরি হয়। তাই মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকে কোন পেশার জন্য কে উপযুক্ত তার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়। যেহেতু সকল পেশার জন্য সকল শিক্ষার্থী শারীরিক ও মানসিকভাবে সমান পারদর্শী নয়, তেমনি শিক্ষার্থী ভেদে পেশার প্রতি আগ্রহ ও মনোভাবও এক রকম নয়। বৃত্তিমূলক নির্দেশনায় শিক্ষার্থীর কাজের প্রতি আগ্রহ, মনোভাব ও প্রবণতা অনুযায়ী নির্দেশনা দিলে সে উপযুক্ত পেশা নির্বাচনে সচেষ্ট হবে। এছাড়া বৃত্তিমূলক নির্দেশনার মাধ্যমে বিভিন্ন কর্মসংস্থান সম্পর্কে ধারণা প্রদানের জন্য বিদ্যালয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে আমন্ত্রণ জানায়। বৃত্তিমূলক নির্দেশনার আওতায় শিক্ষার্থীদেরকে বিভিন্ন শিল্প-প্রতিষ্ঠানে নিয়ে তাদেরকে বিভিন্ন বৃত্তি সম্পর্কে পরিচিত করে তোলা হয়। শিক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে বৃত্তিমূলক নির্দেশনার কার্যাবলি শিক্ষার বিভিন

পরিসংখ্যান কাকে বলে?

কোনো ঘটনা সম্পর্কিত সংখ্যামানের তথ্যাদিকে ঐ ঘটনার পরিসংখ্যান বলে।

পরিসংখ্যানের সংজ্ঞা

পরিসংখ্যান হলো সংখ্যা বিষয়ক বিজ্ঞান। ইতালীয় শব্দ Statista বা ল্যাটিন শব্দ Status থেকে ইংরেজি Statistics শব্দের উৎপত্তি। Statista শব্দের অর্থ রাষ্ট্র বিষয়ক কার্যকলাপ এবং Status অর্থ রাষ্ট্র। নামকরণের ভিত্তিতে এটাই প্রমাণিত হয় যে পরিসংখ্যান বিষয়টি রাজকর্ম পরিচালনার কাজে সৃষ্টি হয়েছিল। জ্ঞান বিজ্ঞানের উত্তরণের সাথে সাথে পরিসংখ্যানের ক্ষেত্র এবং কলাকৌশলের প্রসারতা বৃদ্ধি পেয়েছে। 

পরিসংখ্যান এখন যে কোনো সংখ্যাত্মক গবেষণায় বহুলভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। পরিসংখ্যান বিজ্ঞানের পুরাপুরি ধারণা পেতে হলে পরিসংখ্যানের সংজ্ঞাকে সম্যখভাবে অনুধাবন করতে হবে। এ পাঠে পরিসংখ্যানের বিভিন্ন পরিসংখ্যানবিদদের সংজ্ঞা আলোচনা করা হলো।

প্রাথমিকভাবে পরিসংখ্যান বলতে বুঝায় কোনো অনুসন্ধ্যানের সংখ্যা ভিত্তিক তথ্য। 

অন্যভাবে বলা যায়, সংখ্যা ভিত্তিক উপাত্তের সংগ্রহ, বিশ্লেষণ এবং ব্যাখ্যা দানের বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি। এ সত্ত্বেও বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পরিসংখ্যানবিদ গবেষণা শ্রমলব্ধ অভিজ্ঞতার আলোকে বিভিন্নভাবে পরিসংখ্যানকে সংজ্ঞায়িত করেছেন।

Webster এর মতে, "পরিসংখ্যান বিজ্ঞান হলো একটি রাষ্ট্রে জনসাধারণের অবস্থা সম্পর্কিত শ্রেণিবদ্ধ তথ্যাবলী বিশেষ করে সেসব তথ্য যা সংখ্যায় বা সংখ্যা সারণি বা যে কোনো আকারে বা শ্রেণিবিন্যাসের মাধ্যমে প্রকাশ করা যায়।"

Yule and Kendall এর মতে, "পরিসংখ্যান বিজ্ঞান দ্বারা সেসব সংখ্যাত্মক তথ্যাবলী বুঝায় যা বহুবিধ বিষয় দ্বারা লক্ষণীয় পরিমাণে প্রভাবিত হয়।"

R.A Fisher এর মতে, "পরিসংখ্যান বিজ্ঞান হলো ব্যবহারিক গণিতের একটি শাখা যা সংখ্যাত্মক তথ্য সংগ্রহ ও বিশেষণে প্রয়োগ করা হয়।"

Croxton and Cowden এর মতে, "পরিসংখ্যানকে তথ্য সংগ্রহ, উপস্থাপন, বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যা প্রদান করায় বিজ্ঞান বলা যেতে পারে।"

উপরিউক্তি সংজ্ঞার আলোকে বলা যায় পরিসংখ্যান বিজ্ঞান হচ্ছে কোনো সংখ্যাত্মক তথ্যাবলীর সংগ্রহ, সংঘবদ্ধকরণ, উপস্থাপন, বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যা প্রদান করার বিজ্ঞান।

আরো পড়ুনঃ

👉  ব্যস্ত অনুপাত কাকে বলে?

👉  একান্তর কোণ কাকে বলে?

👉  সরলরেখা কাকে বলে? সরলরেখা ও সমতলের মধ্যে সম্পর্ক কি?

👉  প্রকৃত মান কাকে বলে?

👉  লগারিদম কাকে বলে?

👉  রেখাংশ কাকে বলে?

👉  উপাত্ত কাকে বলে? উপাত্তের বৈশিষ্ট্য, উপাত্তের প্রকারভেদ

👉  পরিসীমা কাকে বলে?

👉  ফাংশন কাকে বলে?

👉  বিন্দু কাকে বলে?

👉  বর্গমূল কাকে বলে?

👉  লেখচিত্র কাকে বলে? লেখচিত্রের শ্রেণিবিভাগ

সর্বাধিক পঠিত পোষ্টসমূহ

প্রাতিষ্ঠানিক পত্র কাকে বলে?

নদী শাসন কাকে বলে?

উদ্ভিদ কোষ ও প্রাণী কোষের মধ্যে পার্থক্য

প্রতিবেদন কি? প্রতিবেদন কাকে বলে?

ডিজিটাল বাংলাদেশ কাকে বলে?

লেখচিত্র কাকে বলে? লেখচিত্রের শ্রেণিবিভাগ

মাটি কাকে বলে?

অধিকার কাকে বলে?

ব্যবস্থাপনার বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা কর।

প্রবন্ধ কাকে বলে? প্রবন্ধের শ্রেণীবিভাগ, প্রবন্ধের বৈশিষ্ট্য