Home ভিডিও ক্লাস রসায়ন পদার্থবিজ্ঞান জীববিজ্ঞান গণিত English

Featured Post

উদারনীতিবাদ কাকে বলে? উদারনীতিবাদের উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর।

উদারনীতিবাদ কাকে বলে? J.S. McClelland তাঁর প্রকাশিত History of Western Political Thought (১৯৯৬-তে প্রকাশিত) গ্রন্থে লিখেছেন যে লকের প্রতি উদারপন্থীদের কিছু পরিমাণ ভালোবাসা লক্ষ্য করা যায় এবং কারণ অনুসন্ধান আদৌ কষ্টসাধ্য নয়। তিনি যে সমস্ত পূর্বানুমানের আশ্রয় নিয়েছিলেন, যে দৃষ্টিভঙ্গি মনে পোষণ করতেন ও বক্তব্য বিশ্লেষণের নিমিত্ত যে সমস্ত যুক্তির অবতারণা করেছিলেন সেগুলিকে অতি সহজে উদারনীতিবাদের পৃষ্ঠপোষকতাকারী উপাদান হিসেবে চিহ্নিত করা যায়। কোন কোন চিন্তক আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে গিয়ে বলেন যে লক এককভাবে উদারনীতিবাদের বিকাশ সাধন করেছিলেন। রাষ্ট্রবিজ্ঞানের তাত্ত্বিক আলোচনায় রাষ্ট্রের কার্যাবলি এবং প্রকৃতি সম্পর্কিত একটি গুরুত্বপূর্ণ মতবাদ হল উদানৈতিক মতবাদ। বস্তুত, রাষ্ট্রবিজ্ঞানে উদারনীতিবাদের সাধারণ অর্থ হল রাষ্ট্রীয় কর্তৃত্ববাদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিস্বাধীনতার নীতি প্রতিষ্ঠা। 'Encyclopedia Britannica' অনুযায়ী, উদারনীতিবাদ হল এমন এক ধারণা যা সরকারি কাজের নীতি ও পদ্ধতিরূপে এবং ব্যক্তি ও সমাজের এক জীবনাদর্শরূপে 'স্বাধীনতা'কে প্রতিষ্ঠা করে। উদারনীতিবাদের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে সারতেরি বলেছে

ব্যবস্থাপনা কাকে বলে?


ব্যবস্থাপনা কাকে বলে?

মানব সভ্যতার শুরু হতে ব্যবস্থাপনা বিভিন্ন মানব সংগঠনে বিস্তৃত হয়ে ছিল। 

প্রাতিষ্ঠানিক লক্ষ্য বা উদ্দেশ্য অর্জনের জন্য ব্যবস্থাপক যে সকল কার্যাবলী (পরিকল্পনা, সংগঠন, কর্মীসংস্থান, নেতৃত্ব, নিয়ন্ত্রণ) সুষ্ঠুভাব সম্পাদন করে থাকে তার সমষ্টিকে ব্যবস্থাপনা বলে।

ব্যবস্থাপনা বা Management ইটালীয় শব্দ ‘Maneggiare’ থেকে এসেছে। যার শাব্দিক অর্থ হল পরিচালনা করা (To handle)। কিন্তু কালের বিবর্তনে এটি মূলত মানব জাতিকে পরিচালনা অর্থে ব্যবহৃত হতে শুরু করেছে।

ব্যবস্থাপনাকে এক কথায় প্রকাশ করা কঠিন। 

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পন্ডিত ব্যক্তি ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন সংজ্ঞা প্রদান করেছেন। 
নিচে কয়েকটি সংজ্ঞা দেয়া হলাে–

আধুনিক ব্যবস্থাপনার জনক Henry Fayol এর মতে “ব্যবস্থাপনা হলাে পূর্বানুমান ও পরিকল্পনা, সংগঠন, নির্দেশনা, সমন্বয় সাধন এবং নিয়ন্ত্রণ করা। 

Terry & Franklin- এর মতে “ব্যবস্থাপনা হলাে এমন একটি স্বতন্ত্র প্রক্রিয়া যা মানুষ ও অন্যান্য সম্পদ সমূহের সুষ্ঠু ব্যবহারের লক্ষ্যে উদ্দেশ্য নির্ধারণ ও তা অর্জনের জন্যে পরিকল্পনা, সংগঠন, উদ্বুদ্ধ করন ও নিয়ন্ত্রণ কার্যের সাথে সম্পৃক্ত।”

Harold Koontz- এর মতে, “ব্যবস্থাপনা হচ্ছে এমন একটি পরিবেশ তৈরী করা ও সংরক্ষণ করার প্রক্রিয়া যাতে দলবদ্ধ ব্যক্তিবর্গ দক্ষতার সাথে অভিষ্ট লক্ষে উপনীতি হয়।”

উপরের আলােচনার থেকে সহজেই বলা যায় যে, ব্যবস্থাপনা হচ্ছে এমন একটি বিজ্ঞান সম্মত জ্ঞান যা প্রতিষ্ঠানের নির্ধারিত লক্ষ্য অর্জনের জন্য প্রয়ােজনীয় উপকরণ একত্রিকরণ ও এগুলাের পূর্ণ ব্যবহারের জন্য পরিকল্পনা প্রণয়ন, সংগঠন, কর্মী সংস্থান, নির্দেশন, প্রেষণা ও নিয়ন্ত্রণমূলক কাজ।

আরো পড়ুনঃ বৈজ্ঞানিক ব্যবস্থাপনা কাকে বলে?

সর্বাধিক পঠিত পোষ্টসমূহ

মাটি কাকে বলে?

প্রকল্প কাকে বলে? প্রকল্পের বৈশিষ্ট্য কী কী? উদ্যোক্তা কিভাবে প্রকল্প নির্বাচন করেন? প্রকল্প নির্বাচনে জনসংখ্যাকে গুরুত্বপূর্ণ প্রভাবক বলা হয় কেন?

পানি কাচ নল বেয়ে উপরে উঠে, পারদ মুক্ত তল থেকে নল বেয়ে নিচে নামে কেন?

উদারনীতিবাদ কাকে বলে? উদারনীতিবাদের উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা কর।

মধ্যক নির্ণয়ের সূত্র কি?

জনমত কি? জনমত কাকে বলে? জনমত বলতে কি বুঝ? জনমতের সংজ্ঞা, জনমত গঠনে গণমাধ্যমের ভূমিকা

নাগরিকতা কাকে বলে?

পীড়ন কাকে বলে? পীড়নের একক | পীড়নের প্রকারভেদ | পীড়ন এর মাত্রা

ক্লিভেজ কাকে বলে? ব্লাস্টোমিয়ার কাকে বলে? মরুলা কাকে বলে? ব্লাস্টোডার্ম কাকে বলে? ব্লাস্টোসিল কাকে বলে?

মেরু কাকে বলে?